ইসরায়েলি আগ্রাসন ঠেকাতে আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা সক্রিয় করেছে সিরিয়া

সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক গতকাল মঙ্গলবার একাধিক বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়
সিরিয়ার রাজধানী দামেস্ক গতকাল মঙ্গলবার একাধিক বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়

ইসরায়েলের আগ্রাসন প্রতিরোধে আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা সক্রিয় করেছে সিরিয়া। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সানা গতকাল মঙ্গলবার রাতে জানায়, রাজধানী দামেস্কে এই আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা সক্রিয় করা হয়েছে।

গতকাল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে একাধিক বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। এ বিস্ফোরণের কথা সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থার খবরে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে বিস্ফোরণের কারণ ও হতাহতের বিষয়ে খবরে কিছু বলা হয়নি। শুধু বলা হয়, লেবাননের আকাশসীমা থেকে ইসরায়েলের জঙ্গি বিমান সিরিয়ায় প্রবেশ করেছিল।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, দামেস্কে সিরিয়ার সেনাবাহিনীর বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে গতকাল বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। এ বিমান হামলার কারণেই দামেস্ক ও তার আশপাশের এলাকায় বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

সিরিয়ান অবজারভেটরির ভাষ্যমতে, দামেস্ক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছের একটি এলাকায় ইসরায়েল বিমান হামলা চালিয়েছে। এ ছাড়া দামেস্ক থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত সিরীয় বিমানবাহিনীর একটি ব্যাটালিয়ন লক্ষ্য করে করে ইসরায়েল বিমান হামলা চালায়। হামলার পর সেখানকার অস্ত্রের ডিপোতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক সংস্থাটি বলছে, সিরিয়ার হোমস প্রদেশের দক্ষিণাঞ্চলেও বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। হোমস প্রদেশে চালানো বিমান হামলায় হতাহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে ঠিক কতজন হতাহত হয়েছে, তা জানাতে পারেনি সিরিয়ান অবজারভেটরি।

সিরিয়ান অবজারভেটরির প্রধান রামি আবদুল রহমান বলেন, ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকার নিয়ন্ত্রণকারী গোষ্ঠী হামাসের সঙ্গে সাম্প্রতিক সংঘাতের পর এই প্রথম ইসরায়েল সিরিয়ায় বিমান হামলা চালাল।

কদাচিৎ সিরিয়ায় হামলা চালানোর কথা স্বীকার করে থাকে ইসরায়েল। গতকাল সিরিয়ায় হওয়া বিমান হামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চায়নি ইসরায়েলের সেনাবাহিনী।

২০১১ সাল থেকে সিরিয়ায় যুদ্ধ চলছে। এই যুদ্ধ চলাকালে প্রতিবেশী সিরিয়ায় শত শত বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। তারা সিরিয়ার ভূখণ্ডে সরকারি লক্ষ্যবস্তুর পাশাপাশি ইরান ও হিজবুল্লাহকে নিশানা করে হামলা চালিয়ে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *